হাতির পায়ে পৃষ্ট হয়ে গত দুই বছরে কক্সবাজারে ১৩ রোহিঙ্গা নিহত

নিউজ ডেস্ক

বাংলাদেশের কক্সবাজারে হাতি চলাচলের রাস্তায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প গড়ে উঠায় হাতি চলাচলে প্রতিবন্ধকতা তৈরি হয়েছে। এতে করে রোহিঙ্গাদের সাথে হাতির সংঘাত সৃষ্টি হচ্ছে। আর এই সংঘাতে হাতির পায়ে পিষ্ট হয়ে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গত দুই বছরে প্রাণ হারিয়েছেন ১২ জন রোহিঙ্গা এবং ১ জন স্থানীয় অধিবাসী। কেবল চলাচলের পথ নয়; হাতির আবাসস্থল এবং খাদ্য চক্র ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ায় বিগদগ্রস্থ হয়ে পড়েছে কক্সবাজারে থাকা প্রায় ৪০টি হাতি। এসব হাতি গত দুই বছরে অন্তত একশত বার শরণার্থী শিবিরে রোহিঙ্গাদের সাথে মুখোমুখী হয়েছে।

মঙ্গলবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকালে কক্সবাজারে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা ইউএনএইচসিআর এবং ইন্টারন্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজারভেশন অফ নেচার সংক্ষেপে আইইউসিএন এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনায় এসব তথ্য তুলে ধরা হয়।
মানুষ এবং হাতির এই সংঘাত প্রতিরোধে এবং হাতি সুরক্ষায় বিভিন্ন সংস্থাকে সমন্বিতভাবে কাজ করার আহ্বান জানান আইইউসিএন এর বাংলাদেশ প্রতিনিধি রাকিবুল আমিন।

আইইউসিএন এবং ইউএনএইচসিআর যৌথভাবে গত ১৮ মাস ধরে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মানব-হাতির সংঘাত রোধে বেশ কিছু কার্যক্রম পরিচালনা করেছে। ইতোমধ্যে প্রায় ১০০টি পর্যবেক্ষণ টাওয়ার এবং অর্ধশত হাতি সাড়াদান টিম গঠন করে হাতির সাথে মানুষের সংঘাত এড়ানোর কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

আলোচনায় শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার মোহাম্মদ মাহবুব আলম তালুকদার উপস্থিত ছিলেন।

Share this:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *